সোমালিয়ায় তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক। নিহত বেড়ে ২৭৬

Somalia 300x166 সোমালিয়ায় তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক। নিহত বেড়ে ২৭৬আকাশ২৪ ডেস্কঃ শনিবার সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে ঘটে যাওয়া বোমা বিস্ফোরনে নিহতদের স্মরনে  রবিবার তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহি মোহাম্মাদ ফার্মাজো। তিনি বলেন, ‘নিরাপরাধ মানুষের মৃত্যুতে আমার তিন দিনের শোক পালন করব, জাতীয় পতাকা অর্ধনিমিত রাখা হবে। এখন সময় ঐক্যবদ্ধ হওয়ার এবং একত্রে প্রার্থনা করার। সন্ত্রাসীরা কখন জিততে পারবে না। ’ টুইটারে দেওয়া ওই ঘোষণায় তিনি আহতদের এবং নিহতদের পরিবারকে সহযোগিতা করতে স্থানীয়দের প্রতি আহ্বান জানান।

শনিবারের ভয়াবহ গাড়ি বোমা হামলায় নিহত বেড়ে অন্তত ২৭৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এতে আহত হয়েছে তিন শতাধিক লোক। দেশটির তথ্যমন্ত্রীর বরাত দিয়ে আলজাজিরা এ খবর জানিয়েছে। মোগাদিসুর একটি অভিজাত হোটেলের প্রবেশপথে প্রথমটি এবং মেদিনা এলাকায় অপর বোমা হামলাটি চালানো হয়। 

স্থানীয় পুলিশ বলছে, সরকারি বিভিন্ন ভবন সংলগ্ন এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে সাফারি হোটেলের প্রবেশপথে প্রথমে একটি লরিতে ভরে আনা বোমার বিকট বিস্ফোরণ ঘটে। এতে হোটেলটির একাংশ ধসে পড়ে। ধসে যায় পাশের কয়েকটি ভবনও। আগুন ধরে যায় আশপাশের গাড়িগুলোতে। পুরো রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে বিধ্বস্ত ভবন ও গাড়ির খণ্ডাংশ।এরপর চার বন্দুকধারীর প্রবেশপথ দিয়ে ভেতরে ঢুকতে চাইলে তাদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিবিনিময় শুরু হয়। বেশ কিছু সময় ধরে চলে মুহুর্মূহু গুলিবিনিময়। এসময় ঘটনাস্থলেই বেশ কিছু লোক নিহত হয়। হাসপাতালে নেওয়া হলে মারা যায় আরও কিছু লোক। হামলার পর পুরো রাস্তায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে বিধ্বস্ত ভবন ও গাড়ির খণ্ডাংশ। এখানে-সেখানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায় মরদেহ। আহতদের রোনাজারিতে পুরো মোগাদিসুর আকাশ ভারী হয়ে ওঠে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, বোমা-গুলিতে যেমন মানুষ মরেছে, তেমনি ধসে পড়া ভবনের নিচে চাপা পড়েও মৃত্যু হয়েছে অনেকের। সাফারি হোটেলে হামলার দু’ঘণ্টা পর রাজধানীর উপকণ্ঠের মেদিনা এলাকায় আরেকটি গাড়ি বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। সেখানে মারা যায় আরও বেশ কিছু লোক। 

২০০৭ সালে বিদ্রোহ শুরু করার পর থেকে এটি দেশটিতে চালানো অন্যতম প্রাণঘাতী হামলা। এ দুটি হামলায় বহু লোক আহত হয়েছে। কারা এই হামলা চালিয়েছে তা পরিষ্কার নয়।দেশটির সরকারের সঙ্গে যুদ্ধরত আল শাবাব নিয়মিত বিরতিতে রাজধানীতে হামলা চালিয়ে থাকে।জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়েদার সঙ্গে আশ শাবাবের সম্পর্ক আছে বলে দেশটির সরকার দাবি করছে।

Facebook Comments
Shares 0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *